শনিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ০৭:২৩ অপরাহ্ন
ঘোষনা :
আন্দোলনের ডাক ডটকমে আপনাকে স্বাগতম , সর্বশেষ সংবাদ জানতে  আন্দোলনের ডাক ডটকমের সাথে থাকুন । আন্দোলনের ডাক ডটকমের জন্য  সকল জেলা ও উপজেলা প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে।  আগ্রহী প্রার্থীগণ জীবন বৃত্তান্ত, পাসপোর্ট সাইজের ১কপি ছবি ও শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদপত্রসহ ই-মেইল পাঠাতে পারেন। শিক্ষাগত যোগ্যতাঃ যে কোন বিশ্ববিদ্যালয় হতে স্নাতক পাস এবং বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজে অধ্যয়নরত ছাত্র/ছাত্রীগণও আবেদন করতে পারবেন।   আবেদন প্রেরণের প্রক্রিয়াঃ  ই-মেইল: , প্রয়োজনে মোবাইলঃ  

মেয়ের সন্ধান মেলেনি ৫ দিনেও, দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন পিতা

বিশেষ প্রতিনিধিঃ / ১০২ বার নিউজটি পড়া হয়েছে
আপডেট টাইম : শনিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ০৭:২৩ অপরাহ্ন

মেয়ের সন্ধান মেলেনি ৫ দিনেও, দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন পিতা

বিশেষ প্রতিনিধি, দৌলতপুর ॥
কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে তানিয়া খাতুন (১২) সপ্তম শ্রেণিতে পডুয়া মেয়ের সন্ধান ও ফেরত পেতে দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন অসহায় পিতাসহ তাদের স্বজরা। গত ১ নভেম্বর তাকে অপহরণ করে স্থানীয় কিছু বঘাটে। ওইদিনই অপহৃত মেয়ের বাবা মতিউর রহমান দৌলতপুর থানায় লিখিত অভিযোগ করলেও ঘটনার ৫ দিন কোন সন্ধান মেলেনি অপহৃত তানিয়ার। সে উপজেলার খাস মথুরাপুর ইউনিয়নের শালিমপুর গ্রামে মতিউর রহমানের মেয়ে। বৃহস্পতিবার সকাল ১১ টায় নিজ বাড়িতে এক সংবাদ সম্বেলন করে নিখোঁজ মেয়েকে ফেরত পেতে গণমাধ্যমের সহযোগিতা চান বাবা মতিউর রহমান ও স্বজনরা।

সংবাদ সম্বেলনে তানিয়ার স্বজনরা অভিযোগ করেন, প্রতিদিনের ন্যায় কোচিং ক্লাস করতে গত শনিবার (১ নভেম্বর) সকাল সাড়ে ৬ টার দিকে তানিয়া বাড়ি থেকে বের হয়। নির্ধারিত সময়ে সে বাড়ি ফিরে না আসেনি। বিভিন্ন জায়গায় খোজ করেও তার সন্ধ্যান পাওয়া যায়নি। পরে জানা যায় নানা প্রলোভন দেখিয়ে পাশের জয়রামপুর গ্রামের আনেজের বখাটে ছেলে আজিজ ও একই গ্রামের কামরুলের ছেলে বখাটে ইমনসহ কয়েকজন কোচিং এ যাওয়ার সময় রাস্তা থেকে তানিয়োকে অপহরণ করে। এ কাজে প্রত্যক্ষ সহযোগীতা করেন শালিমপুর গ্রামের শাহাজুল, শাহাবুল ও মহাবুল নামে আরো তিন বখাটে। বিষয়টি নিশ্চিত হওয়ার পর ওইদিনই (১ নভেম্বর) দৌলতপুর থানায় তানিয়ার বাবা বাদী হয়ে একটি অভিযোগ করেন। কিন্তু ঘটনার ৫ দিন অতিবাহিত হতে চললেও অপহরণকারীদের আটক বা অপহৃত স্কুলছাত্রী তানিয়াকে উদ্ধার করতে পারেনি পুলিশ। এ ঘটনায় চরম উৎকন্ঠার মধ্যে রয়েছেন তারা। সংবাদ সম¦েলনে তানিয়ার বাবা মতিউর রহমান, চাচা শাহাবুল ইসলাম, দাদী রহিলা খাতুন, নানা রহিম বক্স, আকরাম হোসেনসহ স্বজনরা উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ সম্বেলনে তানিয়ার বাবা মতিউর রহমান অভিযোগ করে বলেন, ঘটনার দিনই দৌলতপুর থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়। কিন্তু ঘটনার ৫ দিন অতিবাহিত হতে চললেও অপহৃত মেয়েকে ফেরত পাওয়া যায়নি। থানায় অভিযোগের দু’দিন পর অপহরনের সহযোগি মহাবুলকে আটক করা হলেও অদৃশ্য কারণে তাকে মুচলেকা নিয়ে ছেড়ে দেয় পুলিশ। তার প্রশ্ন, গরীব বলে আইনী সহায়তা পাওয়ার অধিকার কী তাদের নেই?

দৌলতপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) জহুরুল ইসলাম বলেন, এ ঘটনায় পুলিশের কোন গড়িমসি নেই। পুলিশ পুলিশের গতিতে কাজ করছে। এ ঘটনায় মামলা এন্ট্রি করা হয়েছে। বিভিন্ন জায়গায় পুলিশি অভিযান চালানো হচ্ছে। দ্রুত তানিয়াকে উদ্ধারসহ এ ঘটনায় জড়িতদের আইনের আওতায় আনা হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর ....
এক ক্লিকে বিভাগের খবর